বিসিএস প্রস্তুতির জন্য ১০ পরামর্শ

বিসিএস প্রস্তুতির জন্য ১০ পরামর্শ

বিসিএস প্রস্তুতির জন্য ১০ পরামর্শ

বিসিএস প্রস্তুতির জন্য ১০ পরামর্শ

১.
দিন-রাত ২৪ ঘন্টা কিভাবে কাটাবেন, কখন কোনটা পড়বেন, অন্যান্য কাজ কখন কখন করবেন, তার একটা রুটিন করুন। তাড়াহুড়ো করে নয়, সময় নিয়ে বুঝে শুনে রুটিন করুন।
পুরোপুরি মেনে চলতে না পারার ভয়ে অনেকে রুটিন করেন না। কিন্তু পুরোটা মানতে না পারলেও রুটিন করে কাজ করলে সময় অপচয় কম হয়।

২.
প্রয়োজনীয় সকল বই সংগ্রহ করুন। শুধু এক প্রকাশনীর গাইডের উপর নির্ভর করবেন না। সম্ভব হলে প্রথম সারির সকল প্রকাশনীর গাইড ও প্রাসঙ্গিক মূল বই সংগ্রহ করুন।
প্রয়োজনে টাকা ধার করে কিংবা পরিবারের কাছ থেকে অনুরোধ করে টাকা নিয়ে বই কিনুন। বইয়ের জন্য বিনিয়োগ করুন।
মনে রাখবেন, এটা সেরা বিনিয়োগ। একটা বইয়ের জন্য যদি এক নম্বরও বেশি আসে, তার মূল্য অনেক।

৩.
বিগত কমপক্ষে ২০ টি বিসিএস এর প্রশ্ন বুঝে বুঝে সলভ করুন। আগের প্রশ্ন সলভ করলে, প্রস্তুতি কিভাবে নিবেন, আপনার দূর্বলতা কোথায়, কি কি পড়তে হবে, একাই বুঝতে পারবেন।
তাছাড়া আগের প্রশ্ন বেশি বেশি সলভ করলে, পরীক্ষার সময় জড়তা কম হয়। প্রশ্ন পরিচিত মনে হয়।

৪.
স্কুল পর্যায়ের বই, বিশেষ করে ষষ্ঠ থেকে দশম শ্রেণির মূল বই, লাইন বাই লাইন বুঝে বুঝে পড়ুন। অনেক বিষয়ের ব্যাসিক জ্ঞান শক্তিশালী হবে।

৫.
নিয়মিত পত্রিকা পড়ুন।
বিশেষ করে জাতীয় ও আন্তর্জাতিক বিষয়ে গুরুত্বপূর্ণ কলাম, আন্তর্জাতিক খবর, অর্থনৈতিক খবর, গুরুত্বপূর্ণ তথ্য ও ডাটা, সাম্প্রতিক আলোচিত ঘটনা গুলো নিয়মিত পড়া দরকার। খুব ভালো হয় প্রয়োজনীয় নোট নিলে।

৬.
হাতের লেখায় জড়তা ও অস্পষ্টতা ভালো ফলাফলের ক্ষেত্রে বড় প্রতিবন্ধক। আপনার যতই জানাশোনা থাকুক, সেগুলো সুন্দর করে গুছিয়ে উপস্থাপন করতে না পারলে, ফল ভালো করা যাবে না।
তাই হাতের লেখা সুন্দর, গোছানো এবং দ্রুত করার জন্য নিয়মিত চর্চা করতে হবে।

৭.
অপ্রয়োজনীয় আড্ডা এবং ফেসবুক, ইউটিউব ও অন্যান্য প্রযুক্তির অনিয়ন্ত্রিত ব্যবহার আমাদের গুরুত্বপূর্ণ সময়ের সবচেয়ে বড় খুনি।
আড্ডা ও ফেসবুকিংয়ের জন্য সামনে অনেক সময় পাবেন। আগে একটা সন্মানজনক অবস্থান নিশ্চিত করুন।
অপ্রয়োজনে কথা নয়, মৌনব্রত পালন করুন এবং ফেসবুক ও ইউটিউবের ব্যবহার সীমিত করুন।
মনে রাখবেন, সময় গেলে সাধন হবে না।

৮.
বিসিএস এর জন্য আপনার মতোই সিরিয়াস, এমন ২/৩ জন মিলে একটা গ্রুপ করুন। পরষ্পর পড়া নিয়ে আলাপ করুন। পড়া দিন, পড়া নিন। পুরো আলোচনা ও আড্ডা যেন হয়, পড়া ও পরীক্ষার প্রস্তুতি কেন্দ্রীক।

৯.
জাবর কাটতে শিখুন। শুধু পড়লেই হবে না, আত্মস্থ করতে হবে।
সারাদিন যা পরলেন, ঘুমের আগে ৩০ মিনিট থেকে সর্বোচ্চ এক ঘন্টা তা নিয়ে ভাবুন। মনে মনে পর্যালোচনা করুন। মনে মনে পর্যালোচনা করলে পড়া মনে রাখা সহজ হয়।

১০.
স্রষ্টার কাছে বিনীত ও মগ্ন হয়ে প্রার্থনা করুন। নিজের সফলতার জন্য তার কাছে হাত পাতুন। তিনি দিলে কেউ ঠেকাতে পারবে না। কিন্তু পেতে হলে আপনাকে সেভাবে চাইতে হবে। তাঁর নিকট নত ও নম্র হতে হবে।
মনে রাখবেন, চেষ্টা, সাধনা ও দোয়া বিফলে যায়না।
আপনাদের সফলতার জন্য অনেক অনেক দোয়া রইল।

শাহাদাত হোসাইন

Leave a Comment